Sunday , July 5 2020

” সীমান্তে গোলমাল মিটলেই, বৌ-বাচ্চাকে নিয়ে ফিরবো বাড়িতে” এটাই শেষ ইচ্ছে ছিল শহীদ বিপুলের

গত বছর ডিসেম্বরে শেষ দেখা পরিবারের সাথে, তারপর আর চোখের দেখা পাননি পরিবারের কাউকে। আলিপুরদুয়ারের হাবিলদার বিপুল রায় শ’হিদ হয়েছেন গত সোমবার লাদাখে চিন-ভারত সংঘ’র্ষে। পোষ্টিং সূত্রে প্রথমে মিরাটেই থাকতেন তিনি। চিনা হা’মলায় ভারতীয় ২০ জন জওয়ান শ’হীদ হন। যার মধ্যে বাংলার দুজন সেনা’ জওয়ানও ছিলেন। তারই মধ্যে একজন ছিলেন আলিপুরদুয়ারের বিপুল রায়।

লাদাখের নিয়ন্ত্রণরেখায় ভারত চিনের সংঘ”র্ষে প্রা’ণ হারিয়েছেন বিপুল রায়। মাত্র ৩৫ বছরের বিপুলের চলে যাওয়াতে শোকস্তব্দ বাবা নীরেন রায়। ভেবে উঠতে পারছেননা পাঁচদিন আগে ছেলের সাথে কথা হয়েছিল সেটাই তাদের শেষ কথা। ছেলে হাবিলদার বিপুল রায়ের কথা জানতে চাইলে নীরেনবাবু বলেন,ছেলে‌ বলেছিল “লাদাখ সীমান্তে গোলমাল চলছে। মিটে গেলে ছুটি পাব। বৌ-বাচ্চাকে নিয়ে বাড়ি ফিরবো।’’সে ছেলের আর ফেরা হলনা।

প্রসঙ্গত লাদাখের নিয়ন্ত্রণরেখায় চিন ভারতের সংঘ”র্ষের সময় হ’তাহ’তের সংখ্যা বৃদ্ধি পায়।মঙ্গলবার থেকে গোলমাল বেড়ে যাওয়ায় চিন্তায় ছিলেন বছর ৬৬ নীরেনবাবু। সন্ধ্যে থেকে বিপুলকে ফোনে পাওয়া যায়নি। ওইদিন রাত ৯ টা নাগাদ একজন সেনা কর্তা ফোনে জানান হাবিলদার বিপুল রায় শ’হীদ হয়েছেন।

জানা যায় এই সংঘ’র্ষকে কেন্দ্র করে সরকারি বিবৃতি অনুযায়ী বুধবার যে তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে,তাতে বিপুল রায়ের নাম অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। বুধবার সকাল থেকে অনেক মানুষের ভিড় শ’হীদ বিপুল রায়কে একবার দেখার জন্য। বিপুলের আর আট মাস পর অবসর নেওয়ার কথা সেই বিপুল রায়ের আর ফেরা হলনা। তাঁর স্ত্রী ও কন্যা আছে বিন্দিপাড়ার বাড়ি।

Check Also

আসছে ২০০ কোটি করোনা প্রতিষেধক! জানাল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)

আসছে ২০০ কোটি করোনা প্রতিষেধক! জানাল – বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান বিজ্ঞানী ড: সৌম্য স্বামীনাথন ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *