Sunday , October 2 2022

শ্রীরামপুরে মা শ্মশান কালী কেনো জাগ্রত? পূরণ করেন তার ভক্তদের মনস্কামনা !

১৬০ বছরের পুরনো শ্রীরামপুর শ্মশানকালী মন্দিরে নিষ্ঠা মেনে হয় পুজো, মনস্কামনা পূরণের আশায় দূর দুরান্ত থেকে লক্ষ লক্ষ ভক্তের সমাগম হয়।

শ্মশান হল পবিত্র সেই স্থান যেখানে মৃত্যুর পর মানুষের দেহ দাহ করা হয়। পবিত্র এই স্থানে শ্মশান কালীমায়ের পুজো করা হয় যাতে দেহ বিলীন হয়ে যাওয়ার পরও মানুষ মায়ের কাছে আশ্রয় পান, মানুষের আত্মা শান্তি লাভ করে।

শ্রীরামপুরের মা শ্মশানকালী এমনই এক জাগ্রত মা৷ শ্রীরামপুরের শ্মশান ঘাটের পাশেই শ্মশান কালীর মায়ের মন্দির, যার পাশ দিয়েই বহমান গঙ্গা নদী, মায়ের পুজোয় লক্ষ লক্ষ মানুষের উপস্থিতি, মায়ের দর্শন লাভের আশায় এবং মনস্কামনা পূরণের ইচ্ছায় দূরদুরান্ত থেকে মানুষ এসে ভিড় জমায় মায়ের আশীর্বাদ লাভের জন্য | হুগলির মানুষ তো আছেই, এছাড়াও বহু দূর থেকেও অনেক ভক্ত আসেন মায়ের মন্দিরে।

সবত্রই মা শ্মশান কালী জাগ্রত তবে শ্রীরামপুরে মায়ের মন্দির ভীষণ বিখ্যাত। শ্রীরামপুরের শ্মশান কালী মায়ের পুজো এবং মন্দিরের পরিচালনার দায়িত্বে আছে ‘সর্বজনীন শ্মশান কালী পুজো কমিটি’। মায়ের পুজোয় সাহায্য করে
স্থানীয় ক্লাব সবুজ সংঘ, সৌরভ সংঘের সদস্যবৃন্দ।

শ্রীরামপুরে শ্মশান কালীর মন্দির প্রায় ১৬০ বছরের পুরোনো। প্রতিবছর নারকেল ফাটিয়ে শুরু হয় পূজোর আয়োজন। মায়ের বরণ হয় তিন ভাগে, পুজো শুরু হয় চন্ডীপুজোর মাধ্যমে।
মায়ের পুজোয় মনবাসনা পূরণের আকাঙ্ক্ষায় বহু ভক্তের সমাগম হয়। সকাল ৭ টা থেকে সন্ধ্যে ৭ টা পর্যন্ত আচার অনুষ্ঠান মেনে চলতে থাকে পুজোর নানা কাজকর্ম।
মন্দির কমিটির তরফে পুজোর পর শ্মশানকালী মায়ের পুজোর ভোগ ভক্তদের ছাড়াও শ্রীরামপুর অয়ালস হাসপাতালে , শ্রীরামপুর টিবি হাসপাতালে , শ্রীরামপুর শ্রমজীবী হাসপাতালে এবং
চেসারস হোমে ,বিতরণ করা হয়।

Check Also

জন্মাষ্টমীতে বাড়ি আনুন এই ৫ জিনিস, কৃষ্ণের কৃপায় ফুলেফেঁপে উঠবে পরিবার

Janmashtami Remedies: সপ্তাহখানেক পরই জন্মাষ্টমী। এদিন কৃষ্ণের বালক রূপের পুজো করা হয়। পরিবারে সুখ, শান্তি, ...

Leave a Reply

Your email address will not be published.