Monday , September 27 2021

লো’ভী মেয়ে চেনার ৭ টি উপায়

পৃথিবীতে অনেক ধ’রণেরই নারী আছে। তবে একেকজন একেক রকম হয়ে থাকে। কারো সাথেই কারো মিল খুঁ’জে পাওয়া যায় না। আর এদের মাঝেই আছে ভীষণ রকম লো’ভী মানুষ। লোভের জন্য তারা যে কোন কিছু ক’রতেও দ্বি’ধা করেন না।

ধ’রুণ, এই লো’ভী মেয়েদের কেউ যদি আপনার ভালোবাসার মানুষ হয়ে থাকেন! তাহলে নি’শ্চয় বি’পদে পড়বেন আপনি। এ ক্ষে’ত্রে সে কিন্তু স’র্বদা নিজে’র স্বার্থে আপনাকে ব্যবহার করবে, দিন শেষে আপনার মনে হবে আপনি একটি পাপোশের মতন।

আর তাই এই লোভী মানুষগুলোকে চিনে রাখাটা ভী’ষণ জ’রুরী নয় কি? তাহলে কীভাবে চিনবেন?১। লো’ভী প্রকৃত মেয়েগুলো সাধারণত মিষ্টিভাষী হয়ে থাকেন। এদের কথায় মিষ্টতা থাকে। মিষ্টি কথা বলে এরা মানুষকে ভু’লিয়ে রাখতে পারেন।

এদের কথা শোনে আপনার হবে সে প্রচ’ণ্ড রকম ভালো একজন মেয়ে। সে কোন অন্যায় ক’রতেই পারে না। এমনকি সে সবসময় আপনার মন যোগানোর চেষ্টা করে থাকবে। এরা আপনার সাথে ভালো ব্যবহার করে আপনাকে বি’পদে ফে’লে দিতে পারে যেকোনো মু’হূর্তে।

২। লোভী প্রকৃতির মেয়েদের অনেক ব’ন্ধু থাকে। তবে এদের প্র’কৃত ব’ন্ধু থাকে না। প্রতি মু’হুর্তেই এদের ব’ন্ধুত্বের ব’দল হয়। আজ একজন তো কাল আরেকজন।

এরা শুধু প্রয়োজনেই মানুষের সাথে মিশে থাকেন। প্রয়োজন শেষ হলে যতদ্রু’ত সম্ভব এরা কে’টে পরে। এক ব’ন্ধুর থেকে আরেক ব’ন্ধুর কাছে সুযোগ বেশি পেলে তারা ব’ন্ধুত্ব ন’ষ্ট ক’রতেও দ্বি’ধাবোধ করেন না।
পৃথিবীতে অনেক ধ’রণেরই নারী আছে। তবে একেকজন একেক রকম হয়ে থাকে। কারো সাথেই কারো মিল খুঁ’জে পাওয়া যায় না। আর এদের মাঝেই আছে ভীষণ রকম লো’ভী মানুষ। লোভের জন্য তারা যে কোন কিছু ক’রতেও দ্বি’ধা করেন না।

ধ’রুণ, এই লো’ভী মেয়েদের কেউ যদি আপনার ভালোবাসার মানুষ হয়ে থাকেন! তাহলে নি’শ্চয় বি’পদে পড়বেন আপনি। এ ক্ষে’ত্রে সে কিন্তু স’র্বদা নিজে’র স্বার্থে আপনাকে ব্যবহার করবে, দিন শেষে আপনার মনে হবে আপনি একটি পাপোশের মতন।

আর তাই এই লোভী মানুষগুলোকে চিনে রাখাটা ভী’ষণ জ’রুরী নয় কি? তাহলে কীভাবে চিনবেন?১। লো’ভী প্রকৃত মেয়েগুলো সাধারণত মিষ্টিভাষী হয়ে থাকেন। এদের কথায় মিষ্টতা থাকে। মিষ্টি কথা বলে এরা মানুষকে ভু’লিয়ে রাখতে পারেন।

এদের কথা শোনে আপনার হবে সে প্রচ’ণ্ড রকম ভালো একজন মেয়ে। সে কোন অন্যায় ক’রতেই পারে না। এমনকি সে সবসময় আপনার মন যোগানোর চেষ্টা করে থাকবে। এরা আপনার সাথে ভালো ব্যবহার করে আপনাকে বি’পদে ফে’লে দিতে পারে যেকোনো মু’হূর্তে।

২। লোভী প্রকৃতির মেয়েদের অনেক ব’ন্ধু থাকে। তবে এদের প্র’কৃত ব’ন্ধু থাকে না। প্রতি মু’হুর্তেই এদের ব’ন্ধুত্বের ব’দল হয়। আজ একজন তো কাল আরেকজন।

এরা শুধু প্রয়োজনেই মানুষের সাথে মিশে থাকেন। প্রয়োজন শেষ হলে যতদ্রু’ত সম্ভব এরা কে’টে পরে। এক ব’ন্ধুর থেকে আরেক ব’ন্ধুর কাছে সুযোগ বেশি পেলে তারা ব’ন্ধুত্ব ন’ষ্ট ক’রতেও দ্বি’ধাবোধ করেন না।

৩। লো’ভী মেয়েরা সবসময় যা করবে হিসেব ক’ষে করে। এরা হুটহাট করে কিছু করে না। এদের মধ্যে সবসময় এটা না, ওটা, এমন একটা ভাব লক্ষণীয়। যেখানে এদের লাভ থাকে বেশি সেদিকেই এরা যায়। ওটার চেয়ে এটাতে যদি এদের লাভ বেশি হয়, তাহলে তারা এটা ক’রতেই স্বা’চ্ছন্দ্যবোধ করে।
৪। লো’ভী মেয়েরা একার যদি কোন জিনিসের প্রতি আক’র্ষিত হয় তাহলে এরা কখনই অল্পতে স’ন্তুষ্ট থাকে না। তাই নিজে’র চা’হিদা মে’টানোর জন্য এরা যত স’ম্ভব মানুষের কাছে যায়। উ’দ্দেশ্য একটাই ওটা আমা’র চাই-ই চাই।

৫। এদের সব কিছুতেই একটা তাড়া’হুড়োভাব থেকে যায়। এরা কোন কিছুই স্থী’রভাবে করে না। তবে এরা কখনই একটা কাজ করে থেমে থাকে না। এরা কখনোই কোনো কিছুর লো’ভ সা’মলাতে পারে না।

৬। লো’ভী প্রকৃত মেয়েগুলো সবসময় অনেক বেশি কথা বলে। বলতে গেলে এরা বাচাল প্রকৃতির হয়ে থাকে। একবার কথা শুরু করলে এরা থা’মতে চায় না। তবে এমন কোন কথা এরা বলে না যা অন্যের রা’গের কারণ হতে পারে। ভালো কথাই মিষ্টি স্বরে বলে।

৭। এরা মানুষকে উত্য’ক্ত ক’রতে বেশি পছন্দ করে। বিভিন্নভাবে তারা সবাইকে উত্ত্য’ক্ত করে থাকে। অতি’রিক্ত কথা বলে, বারাবার এক কথা বলে, যেকোনো জিনিসের জন্য ধ’রনা ধ’রে তারা সবাইকে উত্ত্য’ক্ত করে বসে।
৩। লো’ভী মেয়েরা সবসময় যা করবে হিসেব ক’ষে করে। এরা হুটহাট করে কিছু করে না। এদের মধ্যে সবসময় এটা না, ওটা, এমন একটা ভাব লক্ষণীয়। যেখানে এদের লাভ থাকে বেশি সেদিকেই এরা যায়। ওটার চেয়ে এটাতে যদি এদের লাভ বেশি হয়, তাহলে তারা এটা ক’রতেই স্বা’চ্ছন্দ্যবোধ করে।
৪। লো’ভী মেয়েরা একার যদি কোন জিনিসের প্রতি আক’র্ষিত হয় তাহলে এরা কখনই অল্পতে স’ন্তুষ্ট থাকে না। তাই নিজে’র চা’হিদা মে’টানোর জন্য এরা যত স’ম্ভব মানুষের কাছে যায়। উ’দ্দেশ্য একটাই ওটা আমা’র চাই-ই চাই।

৫। এদের সব কিছুতেই একটা তাড়া’হুড়োভাব থেকে যায়। এরা কোন কিছুই স্থী’রভাবে করে না। তবে এরা কখনই একটা কাজ করে থেমে থাকে না। এরা কখনোই কোনো কিছুর লো’ভ সা’মলাতে পারে না।

৬। লো’ভী প্রকৃত মেয়েগুলো সবসময় অনেক বেশি কথা বলে। বলতে গেলে এরা বাচাল প্রকৃতির হয়ে থাকে। একবার কথা শুরু করলে এরা থা’মতে চায় না। তবে এমন কোন কথা এরা বলে না যা অন্যের রা’গের কারণ হতে পারে। ভালো কথাই মিষ্টি স্বরে বলে।

৭। এরা মানুষকে উত্য’ক্ত ক’রতে বেশি পছন্দ করে। বিভিন্নভাবে তারা সবাইকে উত্ত্য’ক্ত করে থাকে। অতি’রিক্ত কথা বলে, বারাবার এক কথা বলে, যেকোনো জিনিসের জন্য ধ’রনা ধ’রে তারা সবাইকে উত্ত্য’ক্ত করে বসে।

Check Also

প্রেমিকের কথায় স্বামী-সন্তান ছেড়ে বি’পাকে প্রবাসীর স্ত্রী!

শরীয়তপুর সদর উপজেলায় বিয়ের দাবিতে এক ইতালি প্রবাসী যুবকের বাড়িতে অনশন করছেন এক নারী। শুক্রবার ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *