Sunday , September 19 2021

যাত্রীর এক ‘অন্য আবদার’ মেটালেন বিমান সেবিকা!

এক অদ্ভুত কাণ্ড ঘটিয়ে বুদ্ধির পরিচয় দিয়েছে বিমানসেবিকা। বিমানে যাত্রীর এক অন্য আবদার মিটালেন তিনি। বিমান সেবিকার উপস্থিত বুদ্ধি মুগ্ধ হয়েছেন বিমানে থাকা সকলেই। আন্তর্জাতিক বেশকিছু সংবাদ মাধ্যমে তুলে ধরা হয়, জাপানের একটি ডোমেস্টিক বিমানে এক যাত্রী ওঠার পর থেকেই বিমানসেবিকাদের সঙ্গে অসভ্য ব্যবহার শুরু করেন।

ওই যাত্রীর দাবি ছিল অতিরিক্ত টাকা দেওয়ার পরেও জানলার ধারে জায়গা হয়নি তার। তাই সে শুরু করেন হুড়োহুড়ি। এই অবস্থায় একটি সাদা কাগজ যাত্রীর পাশের দেওয়ালে লাগিয়ে দেন ওই বিমানসেবিকা। তাতে এঁকে দেন একটি কাল্পনিক জানলার ছবি। গোটা বিমান হেসে ওঠে ঘটনাটি দেখে।

একজন যাত্রী ছবিটি তুলে শেয়ার করলে ভাইরাল হয় সেই ছবিটি। ভাইরাল ছবিটি দেখে প্রশংসায় পঞ্চমুখ অনেকেই।

একদিন এক স্ত্রী তার স্বামীকে পরীক্ষা করার জন্য খাটের নিচে লুকিয়ে পরল তারপর…

#একদিন এক স্ত্রী তার স্বামীকে পরীক্ষা করার জন্য সিদ্ধান্ত নিলো !

স্বামীর ঘরে ঢোকার শব্দ পেয়ে স্ত্রী খাটের নিচে লুকিয়ে পরল !

পাশেই একটা টেবিলে একটা চিরকুট দেখতে পেয়ে ভদ্রলোকটি পড়তে শুরু করলেন …

স্ত্রী : তুমি এখন আর আমার কেয়ার নাওনা …ভালোবাসোনা… সময় দাওনা.. মনে হচ্ছে তোমার জীবনে অন্য কোনো মেয়ের আগমন ঘটেছে !

দূরে সরে যাওয়ার চেষ্টা করছো !

তোমার আর কষ্ট করা লাগবেনা !

আমি ই তোমার থেকে দূরে সরে যাচ্ছি! ভালো থেকো তুমি !

চিড়কুট টি পড়ার পড়ে স্বামী পকেট থেকে ফোন বের করে কানে দিয়ে ই বলতে শুরু করলো…

জানু… আপদটা বিদায় হয়েছে..এখন রিলাক্সে থাকতে পারব !

আমি এখন ই আসছি তোমার সাথে দেখা করতে… ! এসব বলে ফোনটা কেটে দিয়ে ড্রেস চেইঞ্জ করে রুম থেকে তাড়াতাড়ি বেরিয়ে পরল !

এসব শুনতে শুনতে স্ত্রী মুখ চেপে কান্না করতে লাগলেন !

স্বামী চলে যাওয়ার পরে বিছুক্ষণ পরে খাটের নিচ থেকে বেরিয়ে এলেন !

খাটের উপর একটি চিড়কুট পেলেন…

লেখাটা পড়ে অবাক হয়ে গেলেন !

তাতে লেখা ছিলো…

পাগলী বউ একটা ! খাটের নিচে তোমার পা গুলো দেখা যাচ্ছিল্লো …

আমি তো তোমার জন্য ই কাজকর্মে যাই..তোমার সুখের জন্য ই তো এত কষ্ট করি ! তবু তুমি ভুল বুঝো !

আমি তোমায় অনেক ভালোবাসি !

আমি কাউকে ই ফোন করিনি !

বাজার থেকে মাংস আনতে যাচ্ছি…

তুমি খাবার রেডি করতে থাকো ..

তারপর একসাথে বসে খাবো কেমন !

আমার পাগলী একটা !

উম্মাহ্ !

লেখাটি দেখে স্ত্রী বসে পরলেন … কাদতে শুরু করলেন ..

কি ভুলটা ই না করতে যাচ্ছিলেন তিনি !

বি.দ্র : ভালোবাসায় সন্দেহ নয় ..বিশ্বাস রাখতে হয় !

একটা ছেলে যত কষ্ট করে তা তার প্রিয়জনকে সুখী রাখার জন্যই করে !।।।।।।।।।।
—————————————–
পোষ্টটি কেমন লাগল?
আপনার মূল্যবান লাইক ও কমেন্ট দিয়ে জানাতে ভুলবেন না।….

Check Also

35 বছর আগে একসঙ্গে জন্মগ্রহণ করেছিলেন এই তিন বোন, এখন তারা একসঙ্গে গর্ভবতী।

মা হওয়ার অনুভূতি বিশ্বের সবথেকে সুন্দর অনুভূতি হিসেবে বিবেচিত হয়। বাচ্চাটি যখন আপনার পেটে থাকে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *