Thursday , February 9 2023

মেয়েকে এইভাবে বড় করুন, সারা বিশ্ব কুর্নিশ করবে আপনার কন্যাকে!

মেয়ের লালন-পালনের ব্যাপারে বাবা-মাকে আরও বেশি যত্নবান হতে হবে কারণ সমাজে ছেলে মেয়ের জন্য আলাদা আলাদা নিয়ম-কানুন তৈরি করা হয়েছে। জীবনে এমন অনেক পরিস্থিতি আসে যখন কন্যাদের আত্মবিশ্বাস কমে যেতে পারে। এমন পরিস্থিতিতে আপনার মেয়ের আত্মবিশ্বাস কী ভাবে বাড়ানো যায় সেদিকে আপনার মনোযোগ দেওয়া উচিত।

বাবা-মাকে তাঁদের সন্তানদের লালন-পালনের বিষয়ে খুব সাবধানে চলতে হবে। তাঁদের সামান্য ভুলও শিশুর হৃদয়ে আঘাত দিতে পারে বা তার মনে হতে পারে যে ছেলে ও মেয়ে মানুষ করার মধ্যে অনেক পার্থক্য। যেখানে সমাজে ছেলের স্বাধীনতা দেওয়া হলেও মেয়েদের কিছু নিয়ম ও সীমার মধ্যে থাকতে বলে আমাদের সমাজ। এই কারণেই বাবা-মাকে তাদের ছেলে এবং মেয়ের আলাদাভাবে যত্ন নিতে হয়।

কন্যাসন্তান লালন-পালনের ক্ষেত্রে বাবা-মাকে খুব সংবেদনশীল হতে হয়, কারণ মেয়েদের জন্য সমাজে তৈরি হয়েছে অনেক নিয়ম। যা কেবল পিতামাতাকেই বোঝাতে হয়। আপনি যদি কন্যা সন্তানের বাব অথবা মা হন, তবে আপনি অবশ্যই জানেন যে একটি মেয়ে সন্তানকে বড় করা আপনার পক্ষে কতটা কঠিন। সমাজে এমন অনেক নিয়ম-কানুন তৈরি হয়েছে, যা সময়ে সময়ে মেয়েদের মনে নানা প্রশ্নের জন্ম দেয়। এমতাবস্থায় মেয়ের আত্মবিশ্বাস বাড়াতে পাশে থাকতে হবে অভিভাবকদেরই। এখানে আমরা আপনাকে এমন কিছু বাক্য সম্পর্কে বলছি যা আপনার কথা বলার সময় আপনার মেয়ের আত্মবিশ্বাস বাড়াতে কাজ করবে।

আপনার মেয়েরও প্রতিভা রয়েছে::কখনও কখনও কিছু পরিস্থিতির কারণে মেয়েরা নিজেদেরকে অন্যদের থেকে ছোট ভাবতে শুরু করে। এ কারণে তাদের আত্মবিশ্বাসও কমতে থাকে। আপনি আপনার মেয়েকে বলুন যে তারও প্রতিভা আছে যা তাকে অন্যদের থেকে আলাদা করে তোলে এবং সে কারোর থেকে কম নয়।

​মেয়েকে বলুন তুমি একেবারেই আলাদা::আপনার মেয়েকে বলুন যে সে খুব বিশেষ এবং আলাদা। এই পৃথিবীতে তার মতো আর কেউ নেই এবং তার নিজেরই গর্ব হওয়া উচিত। আপনার মেয়ে যখন নিজেকে অন্যদের থেকে আলাদা এবং বিশেষ ভাবতে শুরু করবে, তখন তার আত্মবিশ্বাস আপনা-আপনি বেড়েই যাবে।

​বাড়িতে মেয়ের মতামতও প্রয়োজন:: সমাজে এই একটি বিশ্বাস রয়েছে যে মেয়ে বা মহিলাদের অন্যদের খুশি রাখা উচিত এবং অন্যের বা তাদের পরিবারের সদস্যদের সিদ্ধান্তে একমত হওয়া উচিত। তবে, আপনি আপনার মেয়েকে শেখান যে তাকে অন্যদের খুশি করতে হবে না, তবে তার উচিত খোলাখুলিভাবে তার মতামত প্রকাশ করা।

আপনার মেয়েকে তার আবেগ অনুসরণ করতে অনুপ্রাণিত করুন। যখন সে ডানা খুলে উড়ার সুযোগ পাবে, তখন তার আত্মবিশ্বাস আপনা-আপনি বেড়ে যাবে। সর্বোপরি, প্রত্যেকেরই তাদের স্বপ্ন পূরণের অধিকার রয়েছে। আপনার মেয়ে জীবনের যে কোনও সিদ্ধান্ত নিক তার পাশে থাকার চেষ্টা করুন। সে কঠোর পরিশ্রম করেছে তাই আপনি তার আত্মবিশ্বাস বাড়ান এবং তাকে বলুন যে সে তার সেরাটা দিয়েছে।

Check Also

কিনতে যেতে হবে না, বাড়ির সাধারণ পাত্রে লাগান শসা, খেয়াল রাখুন এই ৭টি বিষয়

যে ফসল গুলি বা ফলগুলি বারো মাস পাওয়া যায় তাদের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হলো শসা ...

Leave a Reply

Your email address will not be published.