Sunday , July 3 2022

বিশ্ববিদ্যালয়ের বিনয়ী সেই মেয়েটির বিসিএস ক্যাডারের স্বপ্নভঙ্গ!

তাহেরা ফাইয়াজ মৌ। পড়াশোনা করতেন দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (হাবিপ্রবি)। পড়াশোনা নিয়ে বরাবরই সিরিয়াস ছিলেন তিনি। লকডাউনের মাঝে দীর্ঘদিন ধরে পড়াশোনা বন্ধ থাকায় চিন্তিত হয়ে পড়েন। বাসায় বই নিয়ে যেতে পারেননি। তাই খালাতো ভাইকে সঙ্গে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্শবর্তী মেসে এসেছিলেন বই নিয়ে যেতে।

তবে বই নিয়ে আর ফেরা হল না তার। ঘাতক ট্রাকের চাপায় পিষ্ট হয়েছে একটি সম্ভাবনাময় ভবিষ্যৎ। অর্থনীতি বিভাগের ১৮তম ব্যাচের ওই ছাত্রী শুক্রবার না ফেরার দেশে চলে গেছেন। একটি দুর্ঘটনায় পরিবারে সারা জীবনের কান্না হয়েই থাকবেন তিনি।

সাহপাঠীরা জানিয়েছেন, মৌ খুবই হাসিখুশি একটা মেয়ে ছিল। ক্যাম্পাসে তাকে সবাই ভদ্র ও বিনয়ী মেয়ে হিসেবেই জানতো। পড়াশোনা নিয়েও সিরিয়াস ছিলেন মৌ। স্বপ্ন দেখতেন বিসিএস ক্যাডার হয়ে দেশ সেবা করার। তার সেই স্বপ্ন থেমে গেছে। আর কোনদিন বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আসবে না মৌ। সহপাঠী-বন্ধু, স্বজনদের রেখে চিরদিনের জন্য চলে গেছেন তিনি ওপারে।

জানা যায়, দিনাজপুরের সেতাবগঞ্জে তাহেরা ফাইয়াজ মৌয়ের বাসা। শুক্রবার (১২ জুন) সকাল ৯টায় তাহেরা ফাইয়াজ মৌ তার বাসা থেকে তার খালাতো ভাইয়ের সাথে বাইকে করে বিশ্ববিদ্যালয়ে আসেন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন একটি মেসে থাকতেন। করোনার বন্ধে বাসায় থাকার কারণে মেস থেকে প্রয়োজনীয় বই এবং জিনিসপত্র নিয়ে বাসায় ফেরার পথে ঢাকা-দিনাজপুর মহাসড়কের

মঙ্গলপুর নামক স্থানে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাকের সাথে ধাক্কা লেগে বাইক থেকে ছিটকে পড়ে যান মৌ। এমন সময় আসা অন্য একটি ট্রাকের নিচে পড়ে পিষ্ট হন তিনি। পরে আহত অবস্থায় তাকে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের আইসিইউতে নেওয়া হলে কর্ত্যব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃ’ত ঘোষণা করেন। মৌয়ের মৃত্যুতে সহপাঠী ও স্বজনদের মঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

Check Also

প্রথমবার প্রিলিতে ফেল, দ্বিতীয়বার বিসিএসে ১ম হলেন ওয়ালিদ

জাপানের ঘড়িতে যখন রাত সাড়ে তিনটা তখন আলাপ শুরু ওয়ালিদের সঙ্গে। প্রায় পৌনে এক ঘণ্টার ...

Leave a Reply

Your email address will not be published.