Wednesday , July 6 2022

দেবী স্বরস্বতীর কারণেই কুম্ভকর্ণ টানা ছয় মাস ঘুমিয়ে কাটাতেন, কি এমন করেছিলেন তিনি?

রামায়ণে আমরা সকলেই পড়েছি কুম্ভকর্ণ ছিলেন রাবণের ভাই ও তিনি টানা ছয় মাস ঘুমিয়ে কাটাতেন। তবে তিনি প্রথম থেকে এমন ছিলেন না। তবে তিনি কি কারণে একটানা ছয় মাস ঘুমাতেন এই নিয়ে বহু মতবাদ রয়েছে। এর মধ্যে একটি হলো কুম্ভকর্ণ দীর্ঘদিন তপস্যা করে ব্রহ্মকে সন্তুষ্ট করেছিলেন বলে তাঁকে একটি বর দিতে চান।

কুম্ভকর্ণ বর স্বরূপ ইন্দ্রের আসন চাওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন। দেবরাজ ইন্দ্র একথাটি জানতে পেরে তিনি দেবী সরস্বতীকে এমন বর চাওয়া থাকে আটকাতে বলেছিলেন। তাই কুম্ভকর্ণের বর চাওয়ার সময় সরস্বতী তার জিভ টেনে ধরে। তাই কুম্ভকর্ণ ইন্দ্রাসন (ইন্দ্রের আসন) উচ্চারণের বদলে নিদ্রাসন উচ্চারণ করে বসেন।

আরেকটি কথিত আছে যে রাবণ, বিভীষণ ও কুম্ভকর্ণ যখন কঠোর তপস্যা করছিলেন তখন ব্রহ্মা তাদের তপস্যায় প্রসন্ন হয়ে সামনে আসেন। এরপর রাবণ ও বিভীষণকে তাদের ইচ্ছামত বর দিয়েছিলেন।

কিন্তু ব্রহ্মা কুম্ভকর্ণকে বর দেওয়া নিয়ে চিন্তিত ছিলেন কারণ তিনি ভেবেছিলেন যদি কুম্ভকর্ণ নিয়মিত পেটভরে ভোজন করেন তাহলে খুব শীঘ্রই সবকিছু বিনষ্ট হয়ে যাবে। আর সেই কারণে ব্রহ্মা তাকে টানা ছয় মাস ঘুমিয়ে থাকার বর দিয়েছিলেন। এরপর থেকেই নাকি কুম্ভকর্ণ টানা ছয় মাস ঘুমিয়ে কাটাতেন।

Check Also

জন্মাষ্টমীর দিন এই জিনিসটি অবশ্যই বাড়িতে রাখুন, সুখ ও সম্পদে ভরে উঠবে সংসার

জন্মাষ্টমীর দিন ছাড়া ভারতবর্ষজুড়ে ছোট্ট গোপালের আরাধনা করা হয়। কেউবা পুত্ররূপে আবার কেউবা ভগবান শ্রীকৃষ্ণকে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published.