Monday , December 5 2022

জীবনের সব ইচ্ছা পূরণ হবে নির্জলা একাদশী পালনে ! করুন এই ছোট্ট কাজ….

প্রচলিত বিশ্বাস অনুযায়ী, হিন্দু ধর্মের যতগুলি ব্রত পালন করা হয় তার মধ্যে একাদশী অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং কঠিন । প্রতিবছর প্রায় ২৪ টি একাদশী থাকে। প্রতিমাসে হিসাব করলে দুটি করে একাদশী পড়ে। বহু মানুষ আছেন যারা নিষ্ঠাভরে প্রত্যেক মাসের একাদশী পালন করেন আর এই একাদশী গুলির মধ্যে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একাদশী হল নির্জলা একাদশী । ২০২২ সালে এটি পালিত হবে জুন মাসের ১০ তারিখে অর্থাৎ শুক্রবার।

জৈষ্ঠ্য মাসের শুক্লপক্ষের একাদশী তিথিতে নির্জলা একাদশী পালন করা হয় । পাশাপাশি এই দিনে প্রতিবছরই আবার গায়ত্রী জয়ন্তী পালন করা হয়। প্রচলিত ধারণা অনুযায়ী ২৪ টি একাদশীর মধ্যে শুধুমাত্র নির্জলা একাদশী পালন করেও সবগুলি একাদশীর সমান পুণ্য ফল লাভ করা যায়। এই দিন দানের বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে।

নির্জলা একাদশী পালনের সময়
২০২২ সালে এই বিশেষ একাদশীর তিথি শুরু হবে জুন মাসের ১০ তারিখ সকাল ৭টা ২৫ মিনিটে এবং সমাপ্তি হবে জুন মাসের ১১ তারিখ সকাল ৫ টা ৪৫ মিনিটে। পারণ অর্থাৎ ব্রত ভঙ্গের সময় ভোর ৫টা ৪৯ মিনিট থেকে ৮টা ২৯ মিনিট পর্যন্ত।

সুফল পেতে অসহায়দের দান করুন
এই দিন নিষ্ঠাভরে লক্ষ্মী নারায়ণ এর আরাধনা করে উপবাস পালন করলে ঘরে সুখ সমৃদ্ধি বজায় থাকে। পাশাপাশি এই দিনে দানের বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। তাই অবশ্যই চেষ্টা করুন যথাসাধ্য অসহায় মানুষদের দান করতে। মূলত এই দিন জল না খেয়ে ব্রত রাখা হয় বলে এই একাদশীর নাম নির্জলা একাদশী এবং এই একাদশী অত্যন্ত কঠিন কারণ জৈষ্ঠ্য মাসের এই গরমে সারাদিন জল না খেয়ে একাদশী পালন করা বেশ কঠিন। বহু মানুষ আছেন যারা অত্যন্ত নিষ্ঠা সহকারে সমস্ত নিয়ম মেনেই একাদশী পালন করেন।

•এই দিন কাউকে কোন খারাপ কথা বলবেন না। মিথ্যা কথা থেকে দূরে থাকবেন। পাশাপাশি কারোর উপর রাগ দেখাবেন না, যত সম্ভব চেষ্টা করবেন মোহ আর লোভ থেকে দূরে থাকার।

•এই গ্রীষ্মে চেষ্টা করুন এমন এক স্থানে জল আর একটু খাবার রেখে দিতে যাতে পশুপাখিরা সেগুলি গ্রহণ করতে পারে। পাশাপাশি দুঃস্থ মানুষদের আপনার সামর্থ্য অনুযায়ী কিছু দান করুন সেক্ষেত্রে খাবার হতে পারে , কোনো বস্ত্র হতে পারে বা অন্য কোন প্রয়োজনীয় জিনিস।

•এই বিশেষ তিথিতে ব্রহ্মচর্য পালন করার নিয়ম রয়েছে।

•যেহেতু নির্জলা একাদশী তাই এই দিন তরলজাতীয় কোন খাদ্য গ্রহণ করবেন না, পাশাপাশি তৃষ্ণার্তদের জল পান করাবেন।

•একাদশী ব্রত শুরু করবেন সকালে স্নানের পর সূর্যদেবের উদ্দেশ্যে তর্পণ করে। এই তিথিতে হলুদ রঙের পোশাক পরা অত্যন্ত শুভ।

•তবে যদি মনে করেন< এই গ্রীষ্মে জল পান না করে থাকতে পারবেন না বা কোন শারীরিক সমস্যা থাকলে এই ব্রত পালন করা এড়িয়ে যাবেন। মনে ভক্তি থাকলেই যথেষ্ট। যেহেতু অত্যন্ত কঠিন ব্রত তাই অসুস্থ থাকলে এই ব্রত পালন না করে সারাদিন শুদ্ধাচার এবং নিরামিষ খাবার খেয়ে কাটাতে পারেন।

Check Also

শিবলিঙ্গ জড়িয়ে সাপ, মহাদেবের সঙ্গেই পূজিত হচ্ছেন নাগদেবতা, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

মহাদেবের মন্দিরে মহাদেবের সঙ্গে পূজিত হচ্ছে এক বিষধর সাপ। মহাদেবের লিঙ্গ কে একেবারে জড়িয়ে ধরে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published.