Monday , December 5 2022

খেতে বসেছিল গৃহবধূ, হটাৎ তেড়ে এসে ছোবল মারলো বিশাল কোবরা, ভাইরাল ভিডিও

ছোটবেলা থেকে অনেকের মুখেই শুনি এসেছি যে সাপ দেখতে ভয়ঙ্কর হলেও আদবে তা খুবই নিরীহ জীব। সে শুধু নিজের আত্মরক্ষার জন্যই,

আক্র”মণ করে তাই ভয় পাওয়ার কিছু নেই। এরকম ভয় পাওয়ার কিছু নেই শুধু কথার কথা। কারো বাড়ির কাছে যদি সব ধরা পড়ে তাহলে আর ভয় পাবে না,

এমন মানুষ বোধহয় পৃথিবীতে নেই। তবে এও সত্যিই যে সব সাপ আবার ক্ষ”তিকারক হয়না। বিষধর আর বিষহীন সাপের মধ্যে অনেক কিছু পার্থক্য থাকে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রায়শই এরকম ভয়ঙ্কর সব বিশাল আকারের সাপের ভিডিও ভাইরাল হতে দেখা যায়। তেমনি ভাইরাল হয়েছে আবারও একটি সাপের ভিডিও। ভিডিও শুরু হওয়া মাত্রই দেখা গেল সেই সাপকে উদ্ধার করতে পৌঁছে গেছেন বিখ্যাত সাপ রক্ষাকারী মির্জা মহাম্মদ আরিফ। দেখা গেল চাষের জমির কাছে একটি ছোট্ট ঝিলের পাশে দেখা দিয়েছে এই বিশাল আকারের কোবরা সাপটি। যেহেতু নদীর ওপারে সাপটিকে দেখা দিয়েছিল সেই জন্য একটি বাড়ির মধ্যে দিয়ে নদীর ওপারে গেলেন তিনি। এরপর সেখানে গিয়ে তিনি মাটি খুঁড়তে শুরু করেন। চারিদিকে অসংখ্য মানুষের ভিড় জমে যায়।

অনেকক্ষণ কোদাল দিয়ে মাটি খোঁড়ার পরেও সেই সাপের দেখা প্রায় মেলে না। তারপরে এক সময় হঠাৎ করেই সাপটিকে দেখা যায় এবং লেজ ধরে সাপটিকে বের করে লোকটি। আর সাপটি বাইরে বেরিয়ে আসতে ফোঁস করে ছোবল মারার চেষ্টা করে। যেহেতু সাপটি মাটির নিচে ঢুকে ছিল তার ফলে পুরো কাঁদায় কাঁদা হয়ে গেছিল সাপটির গোটা শরীর। এরপর দেখা গেল একটা বালতির মধ্যে একটু জলে ঢুকিয়ে দেওয়া হল সাপটিকে। যাতে করে সেই সাপটার গা থেকে কাঁদাটা ধুয়ে যায়।

তবে তাকে বালতির মধ্যে ঢোকাতেই সে আবার বেরিয়ে পড়ে। এমন মনোকল কোবরা সাপেদের চেনার একমাত্র উপায় হল তাদের পিছনে একটি কাঁটা চিহ্ন মতো দাগ থাকে। শেষে একটা কাপড়ের ব্যাগেতে সাপটিকে ঢুকিয়ে নেওয়া হলো। ভিডিওটি NAAG LOK নামের ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করা হয়েছে। ৭৫৪ হাজার মানুষ এই ভিডিও দেখেছো আর লাইক করেছে ৩.৪ হাজার মানুষ। দিনের দিন কমেন্ট সংখ্যা বেড়েই চলেছে এই ভিডিওতে। একবার এই ভিডিওটি আপনিও দেখে নিন।

Check Also

একসঙ্গে ফেসবুক এবং গুগলে কোটি টাকার চাকরি পেল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র বিশাখ !! রইলো ভিডিও

কামাল করলেন বাংলার তরুণ। একই সঙ্গে ফেসবুক আর গুগল থেকে পেলেন মোটা বেতনের চাকরির প্রস্তাব। ...

Leave a Reply

Your email address will not be published.