Saturday , January 28 2023

কৌশিকী অমাবস্যা: দেবী কৌশিকীর আবির্ভাব কীভাবে? রইল এক গা ছমছমে কাহিনী

২৬শে আগস্ট এবং ২৭শে আগস্ট তারাপীঠ ভক্তদের ভিড়ে গমগম করবে। ইতিমধ্যেই বহু মানুষ কয়েকদিন আগে থেকেই তারাপীঠে পৌঁছে গিয়েছেন। কারণ কৌশিকী অমাবস্যা বলে কথা। এই অমাবস্যা অন্যান্য অমাবস্যা থেকে একটু ভিন্ন। তন্ত্র এবং শাস্ত্র মতে ভাদ্র মাসের এই অমাবস্যায় মা কৌশিকীর আরাধনা করে কঠিন সাধনায় শিল্পী লাভ করা যায়। এই অমাবস্যা তিথিতে দেবীর কৌশিকী রূপের আরাধনা করা হয়। এই রূপের পিছনে রয়েছে এক পৌরাণিক ঘটনা, যা শুনলে আপনারা গায়ে কাঁটা দেবে। পৌরাণিক কাহিনীর সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে রয়েছে শুম্ভ এবং নিশুম্ভ বধের কাহিনী। অনেকের মনে হয় প্রশ্ন জাগে, এই অমাবস্যার নাম কৌশিকী অমাবস্যা কেন রাখা হয়েছে? হিন্দু ধর্মে এই অমাবস্যা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কেন? জানুন বিশদে।

দেবীর মানস সরোবরে স্নান:’দক্ষযজ্ঞের কথা সবাই জানেন। যেখানে পার্বতী সতী রূপে নিজের স্বামীর অপমান সহ্য করতে পারেননি, তিনি নিজেকে আত্মাহুতি দেন। যার কারণে পরের জন্মে তাঁর গায়ের রং হয় একদম মেঘের মতো কালো। তখন দেবীর নাম হয় কালিকা। একবার দানবদের জ্বালায় অতিষ্ট হয়ে দেবতারা কৈলাসে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছিলেন। দেবতাদের এই পরিস্থিতি থেকে উদ্ধার করতে শিব কালিকাকে নির্দেশ দিয়েছিলেন তাদের উদ্ধার করার জন্য। কিন্তু দেবতাদের সামনে পার্বতীকে কালিকা বলায় তিনি বেশ রেগে যান এবং অপমানিত হয়ে মানস সরোবরের কাছে কঠিন তপস্যায় বসেন। সরোবরের সেই শীতল জলে স্নান করে তাঁর গায়ের রং হয় পূর্ণিমার চাঁদের আলোর মত। কালো কোশিকা থেকে সৃষ্টি হয় অপূর্ব সুন্দর এক দেবী, যাকে বলা হয় দেবী কৌশিকী।

শুম্ভ ও নিশুম্ভ বধ:’শ্রী শ্রী চণ্ডীতে বর্ণিত কাহিনী অনুযায়ী, ব্রহ্মা শুম্ভ এবং নিশুম্ভের কঠিন সাধনায় তুষ্ট হয়ে বর দিয়েছিলেন। সেই বর অনুযায়ী তাদেরকে কোন পুরুষ বধ করতে পারবেন না। একমাত্র যে নারী কোন মাতৃগর্ভ থেকে জন্ম নেননি তাঁর হাতেই মৃত্যু হবে এই দুই অসুরের। দেবতারা এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য মহামায়ার তপস্যা করেন। দেবতাদের তপস্যায় সন্তুষ্ট হয়ে দেবী নিজের কোষ ত্যাগ করেন এবং সেখান থেকে সৃষ্টি হয় দেবীর অন্য এক রূপের। দেবী সেইরূপ কৌশিকী নামে পরিচিত। কারণ শুম্ভ নিশুম্ভ ব্রহ্মার দ্বারা বরপ্রাপ্ত ছিলেন, যে তাঁদেরকে পুরুষের সংস্পর্শে আসা কোন নারী সংহার করতে পারবে না। কিন্তু দেবী ছিলেন শিবের অর্ধাঙ্গিনী তাই তিনি কৌশিকী রূপে বধ করেন শুম্ভ-নিশুম্ভের।

Check Also

মুসলিম মহিলার হাতে শক্তির দেবীর আরাধনা, কালীপুজো ঘিরে এগাঁয়ে উন্মাদনা তুঙ্গে

এক মুসলিম মহিলার হাতে পূজিত হন মা কালী। তাঁর হাতেই এপুজোর শুরু। বছরের পর বছর ...

Leave a Reply

Your email address will not be published.