Friday , September 17 2021

এটা আমার গল্প একটু কষ্ট হলেও হাতে 2 মিনিট সময় নিয়ে পড়ুন, দেখুন ভালো লাগবে

এটা আমার গল্প একটু কষ্ট হলেও হাতে 2 মিনিট সময় নিয়ে পড়ুন, দেখুন ভালো লাগবে***সুন্দরবনের পাশেই একটি গ্রামের এক পরিবারে ৪ জন লোক ছিল। সেই সময় পরিবারেরই একজন কোথা থেকে যেন ছোট্ট একটা কচ্ছপ দিয়ে আসে।ছোট থেকেই কচ্ছপটা সেই পরিবারের সাথে থাকতে শুরু করে। ছোট থেকেই কচ্ছপটা ঘরেই চলাফেরা করতো, খাবার খেতো কিন্তু কাউকে কখনই কামড় বা কস্ট দিত না।

হঠাৎ একদিন কিভাবে যেন কচ্ছপটার কথা চিড়িয়াখানার লোকেরা জানতে পারে।তারা সিদ্ধান্ত নেয় কচ্ছপটাকে যে কোন মূল্যে চিড়িয়াখানায় আনতে হবে।চিড়িয়াখানার লোকেরা এসে দেখলো কচ্ছপটার ওজন ১৬ কেজি ও বয়স ১১ বছর হয়েছে। চিড়িয়াখানার লোকের কচ্ছপটাকে নিতে চাইলো কিন্তু পরিবারের কেউ কচ্ছপটাকে দিতে রাজি নয়;

তারপরও পরিবারের লোকেরা বেশি জোরও করতে পারলো না; কারণ কচ্ছপটা বন্য প্রাণী; আর বাংলাদেশের বন্যপ্রাণী আইনে কোন বন্যপ্রাণী বাড়িতে লালন-পালন করা যায় না।কচ্ছপটাকে সব থেকে বেশি ভালোবাসতো সেই পরিবারের মা। আর কচ্ছপটাও মায়ের মতোই তাকে ভালোবাসতো।

যখন কচ্ছপটাকে নিয়ে যাওয়া হয় তখন কচ্ছপটির চোখ দিয়ে অনবরত অশ্রু ঝরছিলো। আর মা বার বার তার আঁচলে চোখ মুছছিলেন।সে এক হৃদয়-ভাঙ্গা দৃশ্য; যা চোখে না দেখলে কল্পনা করা সম্ভব নয়।এখন প্রশ্ন হচ্ছে, আপনিও কি চান এই কচ্ছপটাকে মায়ের কাছ থেকে দুরে সরিয়ে নেয়া হোক..?

১) হ্যাঁ

২) না

এ সম্পর্কে আপনার মূল্যবান মতামতটি একটু বলে যাবেন, প্লিজ।

Check Also

বাবা, এ তুমি কেমন ঘরে আমার বিয়ে দিয়েছো? ২ মিনিট সময় নিয়ে গল্পটি পড়ুন

কটি মেয়ে তার বাবার কাছে গিয়ে নালিশ করে বললঃ- বাবা,এ তুমি কেমন ঘরে আমার বিয়ে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *