Monday , December 5 2022

একের পর এক বিপত্তি লেগেই রয়েছে! সুখি থাকতে ঘর থেকে বিদায় করুন অশুভ শক্তির এই উত্‍সগুলিকে ?

বসবাসের জায়গায় খারাপ শক্তির উপস্থিতি থাকলে জীবনে কখনও শান্তি বজায় থাকে না। আর এর জন্য রয়েছে কয়েকটি কৌশল।
পজিটিভিটি (Positivity) হল সুখে থাকার অন্যতম চাবিকাঠি। আর সেই সুখে থাকার মূলমন্ত্রই সারাজীবন ধরে খুঁজে বেড়াই আমরা। কোথায় পাওয়া যায় সেই সুখী গৃহকোণের (Happy Home) চাবিকাঠি? বাড়ির এমন একটা জায়গা দরকার, যেখানে দুদণ্ড বসে পরিবারের সঙ্গে শান্তিতে মনের কথা খুলে রাখতে পারি। কিন্তু দিনের পর দিন পারিবারিক শান্তি (Family Problems) হারিয়ে তলানিতে গিয়ে দাঁড়িয়েছে। একের পর এক অশান্তিতে নাজেহাল নিজের ভাগ্যের পাশাপাশি ঘরের ভিতরের অশুভ শক্তির উত্‍সগুলিকে সনাক্ত করার চেষ্টা করুন। বসবাসের জায়গায় খারাপ শক্তির উপস্থিতি থাকলে জীবনে কখনও শান্তি বজায় থাকে না। আর এর জন্য রয়েছে কয়েকটি কৌশল। নেগেটিভ এনার্জিগুলিকে (Negetive Energy) শনাক্ত করে দূরে সরিয়ে রাখলেই দেখবেন জীবনে ফিরে আসবে সুবর্ণ সময়। বাস্তুমতে (Vastu Tips), একটি ভারতীয় বৈদিক ব্যবস্থায় যা নির্মিত পরিবেশের শারীরিক, মানসিক এবং আধ্যাত্মিক আদেশ নিশ্চিত করে। আপনি যদি একজন বাড়ির মালিক হন তাহলে দ্রুত বাড়ি থেকে যাতে অশুভ শক্তি বা নেগেটিভ এনার্জি তাড়ানো যায়, তার ব্যবস্থা করা দরকার। গৃহে পজিটিভ শক্তিকে প্রবেশ করানোর তালিকা বেশ দীর্ঘ….

ভাঙা আয়না:
বাস্তু অনুসারে, নোংরা এবং ভাঙা আয়না গৃহে একেবারেই রাখবেন না। তাতে পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে সম্পর্কের চিড় ধরে। তাই কাচ পরিষ্কার করার সময় ভাঙা কাচ সরিয়ে ফেলা উচিত। বাইরে থেকে দৃশ্যমান দেওয়ালে আয়না ঝুলিয়ে রাখবেন না। তাতে নেতিবাচক শক্তি ঘরেই থেকেই যায়।

মৃত প্রাণী:
বাস্তু মতে ঘরে অপ্রাকৃতিক কিছু রাখা উচিত নয়। হাতির দাঁত, চামড়া, শাঁস, শামুক, শিং, শিং বা ট্যাক্সিডার্মাইজড এবং এম্বলড প্রজাতি মৃত প্রাণীর অংশগুলির বাড়িতে দুর্ভাগ্য বয়ে নিয়ে আসে।

মৃত গাছপালা:
এটি সাধারণত বিশ্বাস করা হয় যে ক্যাকটাস এবং অন্যান্য কাঁটাযুক্ত গাছগুলি বাড়িতে কলহ এবং বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে। রোমান্টিক সম্পর্কের ক্ষতি করে। আর্থিক অসুবিধা সৃষ্টি করতে সক্ষম। বসার ঘর, শোওয়ার ঘরে বা বাড়ির মূল প্রবেশপথে এমন গাছপালা থাকা উচিত নয়। শুকিয়ে যাওয়া ফুল ঘরে রাখা উচিত নয়। প্রাণহীন ফুল ও গাছপালা আশেপাশের শক্তি প্রবাহে ব্যাঘাত ঘটায় এবং ঘরের শক্তির ভারসাম্য নষ্ট করে।
এছাড়াও, কিছু ফুল, যেমন কার্নেশন, কখনই বাড়ির ভিতরে রাখা উচিত নয়। এটা বিশ্বাস করা হয় যে তারা দুর্ভাগ্য নিয়ে আসে। তবে, আপনি আপনার বাগানে কার্নেশন লাগাতে পারেন।

বন্ধ ঘড়ি:
বাস্তুমতে, ভাঙা বা বন্ধ হয়ে যাওয়া ঘড়ি মেরামত করা বা ঘর থেকে সরিয়ে দেওয়া উচিত। থেমে যাওয়া ঘড়ি জীবনে অলসতা এবং অস্থিরতার পরিচয় দেয়। এটি আপনাকে আপনার সম্পর্ক, ব্যবসা বা আর্থিক অগ্রগতি থেকে বিরত রাখতে পারে।

ভাঙা জিনিসপত্র:
ক্ষতিগ্রস্থ, ফাটল বা দাগযুক্ত চিনামাটির বাসন, টেবিলওয়্যার, চশমা এবং এই জাতীয় অন্যান্য জিনিসগুলি প্রায়শই স্টোরেজে রাখা হয়। তারপরে বাড়িতে অবহেলিত হয়ে এককোণে পড়ে থাকে। রান্নার সমস্ত পাত্রগুলি ঠিকঠাক আছে কিনা তা নজরে রাখুন। দুর্ঘটনাক্রমে কিছু ভেঙ্গে গেলে, দুঃখ এবং নেতিবাচক এনার্জি এড়াতে এর থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যায়।

অশুভ শক্তি দূর করার উপায়:
স্বাস্থ্যবিধি:
ভারতীয় ঐতিহ্য অনুসারে, দেবী লক্ষ্মী সবসময় পরিষ্কার বাড়িতে থাকতে পছন্দ করেন। ভাল পরিবেশে বসবাস করলে রোগ এবং বিষণ্নতা এড়াতে সাহায্য করে।

শব্দ ব্যবহার করুন:
ঘরে রাখা উইন্ড চাইম নেগেটিভ এনার্জি দূরে রাখে। কাইমসের চাইমস নেতিবাচক শক্তির ধরণগুলিকে ব্যাহত করতে এবং ইতিবাচক শক্তির প্রবাহকে উন্নিত করতে সহায়তা করে।

হালকা গন্ধের ধূপকাঠি জ্বালিয়ে রাখুন:
সুগন্ধি ধূপ জ্বালিয়ে রাখা দীর্ঘকাল ধরে একটি আধ্যাত্মিক এবং ধ্যানমূলক অনুশীলন বলে মনে করা হয়। ঘর থেকে নেগেটিভ শক্তি দূর করার সহজতম পদ্ধতিগুলির মধ্যে অন্যতম উপায়। এতে শুভ শক্তির মাত্রা বাড়ে।

লবণ ব্যবহার করুন:
সামুদ্রিক লবণ আপনার বাড়ির সমস্ত খারাপ শক্তিকে দূরে সরিয়ে রাখতে সাহায্য করে। প্রতিটি ঘরে সামুদ্রিক লবণের প্লেট রাখুন। এছাড়াও, ঘরের কোণে সমুদ্রের লবণের শিলা রাখতে পারেন।

বিশৃঙ্খলা এড়ান:
গৃহস্থালির জিনিসপত্র এবং জামাকাপড় প্রচুর শক্তি ধরে রাখে। যার ফলে আমাদের শারীরিক, মানসিক এবং আধ্যাত্মিক সুস্থ থাকতে বাধাগ্রস্ত হয়। চারিদিকে বিশৃঙ্খলা থাকলে আপনি ক্লান্ত এবং রাগান্বিত বোধ করতে পারেন।

রং ব্যবহার করুন:
গৃহে সুখশান্তিতে থাকার ব্যাপারে রঙের প্রভাব রয়েছে। ঘরের দেওয়ালের রঙ কেমন হবে তার উপর নির্ভর করে সুখী থাকার অন্যতম কারণ। বাস্তুশাস্ত্র অনুসারে, উত্তর পশ্চিম, উত্তর এবং উত্তর পূর্বে নীল; কমলা রং দক্ষিণ-পূর্বে উপযুক্ত, দক্ষিণে লাল এবং দক্ষিণ-পশ্চিমে হলুদ।

ধর্মীয় প্রতীক:
আপনার বাড়িতে ধর্মীয় মূর্তি, পেইন্টিং এবং প্রত্নবস্তু প্রদর্শন করা নেতিবাচক শক্তিকে দূর করতে সাহায্য করে। পজিটিভিটিকে স্বাগত জানাতে প্রার্থনা এবং মন্ত্র ব্যবহার করারও পরামর্শ দেওয়া হয়।

Check Also

শিবলিঙ্গ জড়িয়ে সাপ, মহাদেবের সঙ্গেই পূজিত হচ্ছেন নাগদেবতা, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

মহাদেবের মন্দিরে মহাদেবের সঙ্গে পূজিত হচ্ছে এক বিষধর সাপ। মহাদেবের লিঙ্গ কে একেবারে জড়িয়ে ধরে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published.