Saturday , September 18 2021

একটি মাত্র পাতা ব্যবহারে কালো ঠোঁট হয়ে যাবে গোলাপি (শিখে নিন ঘরোয়া উপায়)

আজকে আপনাদের কালো ঠোঁট গোলাপি করার কার্যকারী উপায় দেখাবো কিভাবে মাত্র একটি মাত্র উপাদান দিয়ে এই কাজ টি করতে পারবেন।এর জন্যে আপনার লাগবে ধনে পাতা ।ধনে পাতা নিয়ে প্রথমে ধু’য়ে নিতে হবে।তারপর কুচিকুচি করে কেটে বাটিতে রাখতে হবে এবং কোন চামচ দিয়ে এটি থেতলে নিতে হবে। এরপর আপানার কালো ঠোঁটে এটি ব্যাবহার করতে হবে।তাহলে আপনার কালো ঠোঁট হয়ে যাবে বাচ্চাদের মতো গোলাপি ঠোঁট।

পোস্টটি ভিডিও সহ দেখুন নিচে …

পোস্টটি ভিডিও সহ দেখুন নিচে …

পোস্টটি ভিডিও সহ দেখুন নিচে …

আরও পড়ুন …

নাক দিয়ে পানি পড়া, চুলকানি, শ্বাসক’ষ্ট বা য’ন্ত্রণার মত অস্বস্তিকর সম’স্যাগুলোই হতে দেখা যায় অ্যা’লার্জি হলে। অ্যা’লার্জির কারণে মুডও খা’রাপ হয়ে যায়। অ্যালার্জি দূর করার জন্য বিভিন্ন ধরণের ঔ’ষধ গ্রহণের পরামর্শ দেয়া হয় যেমন- ব্রঙ্কোডাইলেটরস, কর্টিকোস্টেরয়েডস, ন্যাজাল ডিকঞ্জেস্টেন্ট এবং অ্যান্টিহিস্টামিন জাতীয় ঔ’ষধ। কিন্তু ঔ’ষধের উপর নির্ভরশীল হয়ে পড়লে তা শরীরের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলে। প্রাকৃতিক উপাদানের দ্বারাও অ্যা’লার্জি প্রতিরোদ করা যায়। আসুন তাহলে এমন কিছু খাবারের কথাই জেনে নিই যা অ্যালার্জি প্রতিরো’ধে সাহায্য করবে।

১। রসুন:-রসুন রো’গপ্রতিরোধ ক্ষ’মতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। এতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও থাকে। এক টুকরো রসুন খাওয়া ঔ’ষধ খাওয়ার মতোই আপনাকে নির্দিষ্ট কিছু ইনফে’কশন থেকে সুর’ক্ষা দেয়।

২। হলুদ:-

হলুদে এমন উপাদান থাকে যা অ্যা’লার্জি ভালো করতে সাহায্য করে। এতে অ্যান্টি ইনফ্লামেটরি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান কারকিউমিন থাকে। ইউনিভার্সিটি অফ টেক্সাসের গবেষ’কদের মতে হলুদে অ্যান্টিভাইরাল, অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল ও অ্যান্টিফাংগাল উপাদান আছে।

৩। দই:-

দই এর ভালো ব্যাকটেরিয়া অ্যালার্জি কমাতে সাহায্য করে। বিভিন্ন গবে’ষণায় দাবী করা হয়েছে যে যারা নিয়মিত দই খান তাদের ইনফ্লামেশন হওয়ার সম্ভা’বনা কমে।

৪। মাছ:-

ফ্যাটি ফিশ ইনফ্লামেশন কমাতে পারে। অ্যালার্জি প্রতিরোধের জন্য সপ্তাহে একদিন ওমেগা ৩ ফ্যাটি এসিড সমৃদ্ধ মাছ খান।

৫। ভিটামিন সি:-

ভিটামিন সি দুই ভাবে সাহায্য করে। ইমিউ’নিটিকে উদ্দীপিত করে এবং অ্যালার্জি প্রতি’রোধ করে। নিয়মিত কমলা বা লেবুর রস গ্রহণ করুন।

৬। পেঁয়াজ:-

পেঁয়াজে কোয়ারসেটিন নামক উপাদান থাকে যা অ্যালার্জি কমাতে পারে। এটি প্রদাহ কমতে এবং ইমিউনিটিকে শক্তি’শালী করতেও সাহায্য করে।

৭। ভিটামিন ই:-

ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবার যেমন অ্যাভোকাডো, বাদাম এবং সবুজ শাকসবজি খেলে অ্যালার্জিকে প্রতি’রোধ করা যায়।

Check Also

আপনি কি সিঁড়ি দিয়ে ওঠা নামা করেন? জেনেনিন এটি স্বাস্থ্যের পক্ষে ভালো না খারাপ

প্রতিদিন কিছু না কিছু ব্যায়ামের অভ্যাস গড়ে তোলা শরীরের জন্য ভালো। কিন্তু যারা হাঁটতে চান ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *