ক্যানসার হওয়ার ১০ ভীতিকর লক্ষণ

সারা বিশ্বেই ক্যানসার একটি আতঙ্কের নাম। তবে প্রাথমিক পর্যায়ে চিকিৎসা নিলে ক্যানসার অনেকাংশেই নিরাময় করা সম্ভব। তাই একটু সচেতন হওয়া জরুরি। কিছু লক্ষণ রয়েছে যেগুলো দেখলে ধারণা করা যায় ক্যানসার হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। যদি এই লক্ষণগুলোর এক বা একাধিক আপনার মধ্যে থাকে তবে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে ক্যানসারের এই লক্ষণগুলোর কথা।

১. হঠাৎ ওজন কমে যাওয়া: ব্যায়াম করে এবং খাওয়াদাওয়া নিয়ন্ত্রণ করে বাড়তি ওজন কমানো ভালো কথা। তবে যদি কোনো কারণ ছাড়াই ওজন ভীষণভাবে কমে যায় তবে এটি ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে। এটি প্যানক্রিয়াস এবং পাকস্থলীর ক্যানসার লক্ষণ।

২. জ্বর: দীর্ঘদিন ধরে জ্বর থাকা রক্তের ক্যানসারের কারণ হতে পারে। আপনি যদি এ ধরনের সমস্যায় ভোগেন তবে দ্রুত চিকিৎসকের কাছে যান। যদি ক্যানসার নাও হয় তবু এর চিকিৎসা ভালোভাবে করা উচিত। কেননা এটা অন্য কোনো বাজে জ্বরের (যেমন টাইফয়েড) লক্ষণ হতে পারে।

৩. ব্যথা: ব্যথা বিভিন্ন কারণে হতে পারে। তবে দীর্ঘদিন ধরে মাথাব্যথা হওয়া এবং সেটা না কমা মস্তিষ্কের ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে। এ ছাড়া দীর্ঘদিন ধরে পিঠে ব্যথা রেক্টাল অথবা অভারি ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে। যদি এ ধরনের কোনো ব্যথার মুখোমুখি হন, তবে অবশ্যই চিকিৎসকের কাছে যান।

৪. কফ: অনেক দিন ধরে কফ হলে এবং গলার ফ্যাসফেসে ভাব হলে এড়িয়ে যাবেন না। ঋতু পরিবর্তনের সময় অ্যালার্জির সমস্যাতেও কফ হয়। তবে দীর্ঘদিন ধরে থাকা কফ ফুসফুসের ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে। তাই এ ধরনের সমস্যায় চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

৫. চাকাভাব: দেহের কোনো অংশে চাকাভাব বা পরিবর্তন দেখতে পেলে একে এড়িয়ে না গিয়ে চিকিৎসকের কাছে যান। বিশেষ করে স্তনে, হাতে বা পায়ে কোনো চাকাভাব হলে এড়িয়ে যাবেন না। সব সময় এই চাকাভাব ক্ষতির কারণ নাও হতে পারে। তবে এই পরিবর্তন কখনো কখনো ক্যানসারের লক্ষণ হিসেবে প্রকাশ পায়।

৬. অস্বাভাবিক রক্তপাত: অস্বাভাবিত রক্তপাতও ক্যানসারের একটি লক্ষণ। কফের সঙ্গে রক্ত যাওয়া ফুসফুস ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে। মলের সঙ্গে রক্ত যাওয়া কোলন বা রেক্টাল ক্যানসারের লক্ষণ। প্রস্রাবের সঙ্গে রক্ত যাওয়া পিত্তথলির ক্যানসারের লক্ষণ। যোনিপথে অযথা রক্তপাত জরায়ুমুখের ক্যানসারের লক্ষণ। স্তনের বোঁটায় রক্তপাত এই ক্যানসারের কারণে হতে পারে। তাই এ ধরনের অস্বাভাবিক রক্তপাত দেখলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

৭. প্রস্রাবে সমস্যা: প্রস্রাব করার সময় কি আপনার ব্যথা লাগে? কোনো ধরনের অস্বত্বিবোধ হয়? অথবা বেশি প্রস্রাব হয় বা কম প্রস্রাব হয়? এমন সমস্যা হলে দ্রুত চিকিৎসকের কাছে যান। এটি মূত্রথলির ক্যানসার বা প্রস্টেট ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে। এ ছাড়া ডায়রিয়া বা কোষ্ঠকাঠিন্য ছাড়া যদি মলত্যাগের সমস্যা হয়, তবে সেটা কোলন ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে।

৮. ঘা, যেটা সারছে না: যদি কোনো ঘা অনেকদিন ধরে ভালো না হয় তবে সেটা ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে। যেমন : মুখের ঘা মুখ গহ্বরের ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে।

৯. ত্বকে পরিবর্তন: ত্বকে কোনো পরিবর্তন বা আঁচিলভাব দীর্ঘদিন ধরে থাকলে এটা ত্বকের ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে। এই ধরনের ক্যানসার প্রাথমিক অবস্থায় ধরা পড়লে একেবারে নিরাময় করা সম্ভব। তাই এধরনের লক্ষণে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

১০. অবসন্নতা: অবসন্নতা ক্যানসারের একটি অন্যতম লক্ষণ। বিভিন্ন কারণেই অবসন্নতা হতে পারে। তবে যদি সব সময়ই ক্লান্ত বা অবসন্ন বোধ হয় এবং এটা দীর্ঘস্থায়ী হয় তবে অবশ্যই চিকিৎসকের কাছে যান।

Facebook Comments

Check Also

কোন ভিটামিনের অভাবে কী রোগ হয়?

ভিটামিন হলো খাদ্যে জরুরি কিছু ছোট জৈব অণু। ভিটামিনকে দুই ভাগে ভাগ করা হয়। পানিতে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *